Gmail! | Yahoo! | Facbook

চট্টগ্রামে ঐক্যফ্রন্টের আগামীকালের সমাবেশে বক্তব্য দিবেন ড. কামাল- ফখরুলসহ জাতীয় নেতারা

FacebookTwitterGoogle+Share

kazir deoriঢাকা, ২৬ অক্টোবর ২০১৮ঃ অবশেষে চট্টগ্রামে সমাবেশের অনুমতি পেয়েছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। জোটের পক্ষ থেকে লালদীঘি মাঠে সমাবেশের অনুমতি চাওয়া হলেও নগর পুলিশ বিএনপি কার্যালয় নাসিমন ভবনের সামনে সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে।

আগামীকাল শনিবার এ সমাবেশ হবে। সমাবেশের জন্য কাঙ্ক্ষিত জায়গা না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নগর বিএনপি নেতারা।

এদিকে সকালে মহানগর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে আগামীকালের সমাবেশস্থল পরিদর্শন করেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। পরে বিএনপি কার্যালয়ে প্রস্তুতি সভায় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা অভিযোগ করে বলেন, সমাবেশের অনুমতি চেয়ে এক সপ্তাহ আগে আবেদন করার পরও লালদীঘির মাঠে অনুমতি দেয়নি পুলিশ। অবশেষে সমাবেশের একদিন আগে জানানো হয়েছে, বিএনপি কার্যালয়ের সামনে কর্মসূচি পালন করা যাবে।

ঐক্যফ্রন্ট চট্টগ্রামের সমন্বয়ক ও মহানগর বিএনপি সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন জানান, আগামীকালের সমাবেশে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতারা অংশ নেবেন। এছাড়া খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমানসহ ২০ দলীয় জোটের অনেক নেতা সমাবেশে অংশগ্রহণ করবেন।

নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ লালদীঘি মাঠে সমাবেশের অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু আজ (শুক্রবার) সকালে সিএমপির পক্ষ থেকে নাসিমন ভবনে আমাদের পার্টি অফিসের সামনে সমাবেশ করতে পারবো বলে জানিয়েছে তারা।’

২৭ অক্টোবর ২৫ শর্তে ঐক্যফ্রন্টকে এ সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। শর্তগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো সমাবেশ বিকেল ৫টার মধ্যে শেষ করতে হবে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সমাবেশের অনুমতি পেয়ে বিএনপির দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনে জরুরি প্রস্তুতি বৈঠকে বসেছেন চট্টগ্রামের ঐক্যফ্রন্ট নেতারা।

এর আগে গত ২০ অক্টোবর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম লালদীঘি ময়দানে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়। এ বিষয়ে গত ছয় দিন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কাছ থেকে কোনো ধরনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য