Gmail! | Yahoo! | Facbook

ইভিএম ক্রয় অনুমোদন করে সরকার নির্বাচনে ডিজিটাল কারচুপির ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছেঃ খেলাফত মজলিস

FacebookTwitterGoogle+Share

Maulana Mohammad Ishaqueঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ঃ খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, অধিকাংশ রাজনৈতিক দলের বিরোধীতা সত্ত্বেও একনেকের বৈঠকে ৩ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে দেড় লাখ ইভিএম ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন করে সরকার নির্বাচনে ডিজিটাল কারচুপির ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে। একই সাথে ইভিএম ক্রয়ের নামে জনগণের বিশাল অংকের অর্থ লুটপাটের ব্যবস্থা করেছে। নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে রাজনৈতিক দলসমূহের কোনরকম মতৈক্য ছাড়াই শুধু সরকারের আগ্রহে ইভিএম ব্যবহার জনগণ মানবে না। বর্তমান সরকার যা চাচ্ছে নির্বাচন কমিশন তাই করছে। সুতরাং বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশন দিয়ে অতাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব নয়। তাই নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন করে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করে জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে সংসদ নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। এ জন্যে নবাইকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় নির্বাহী বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।

গতকাল সন্ধ্যা ৭টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আমীরে মজলিস মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমান, যুগ্মমহাসচিব এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল হালিম, অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, অধ্যাপক কে এম আলম, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, মাওলানা আজীজুল হক প্রমুখ।
বৈঠকে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের তীব্র আপত্তি ও বিরোধিতা সত্ত্বেও জাতীয় সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশের উদ্যোগের তীব্র নিন্দা জানিয়ে সাংবাদিক ও সংবাদ মাধ্যমের অধিকার হরণের নিমিত্তের প্রণীতব্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংসদে পাশ না করার দাবী জানিয়ে অবিলম্বে জাতীয় সংসদে উত্থাপিত খসড়া ডিজিটিাল নিরাপত্ত আইন প্রত্যাাহরের দাবী জানান হয়।
বৈঠকে সম্প্রতি রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ও বর্তমানে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় দাওয়াহ বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা নূরুজ্জামান খানের দ্রুত সুস্থতার জন্যে বিশেষ দোয়া-মুনজাত করা হয়। মুনজাত পরিচালনা করেন আমীরে মজলিস অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক। বিজ্ঞপ্তি

মন্তব্য