Gmail! | Yahoo! | Facbook

৩৬টি সংসদীয় আসনে খেলাফত মজলিসের প্রার্থী চূড়ান্ত

FacebookTwitterGoogle+Share
ক্ষমতা হারানোর ভয়ে সরকার অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে ভয় পাচ্ছে: মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক
km shuraঢাকা, ২৬ জুলাই ২০১৮: সারাদেশে ৩৬টি সংসদীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার লক্ষ্যে খেলাফত মজলিসের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়।ঢাকার শাহজাহানপুরস্থ মাহবুব আলী ইনস্টিটিউটে খেলাফত মজলিসের  কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার অধিবেশনে এ তালিকা চূড়ান্ত করা হয়।
অধিবেশনে খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, ক্ষমতা হারানোর ভয়ে জনবিচ্ছিন্ন সরকার দেশে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে ভয় পাচ্ছে। কিন্তু জনগণ দেশে আর কোন ভোটারবিহীন নির্বাচন দেখতে চায় না। জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে জাতীয় নির্বাচন ঘোষনা করতে হবে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের উপর জেল জুলুম নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। ময়দানে সবার জন্যে সমান সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। দেশবাসী একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্যে অপেক্ষা করছে। জনগণের দাবীকে পাশ কাটিয়ে সরকার নির্বাচনের নামে প্রহসন করতে চাইলেচলমান রাজনৈতিক সংকট আরো ঘনীভূত হবে। খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সাধারণ অধিবেশনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মাওলানা ইসহাক বলেন, দেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে এক চরম বিশৃঙ্খলা বিরাজ করছে। সর্বত্র ঘুষ, দুর্নীতে ছেয়ে গেছে। বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী ব্যাংকে হাজার হাজার কোটি টাকার দুনীর্তির ঘটনা ঘটছে। বাংলাদেশ ব্যাকের রিজার্ভ থেকে ৮০০ কোটি টাকা চুরির সাথে জড়িতদের বিচার না করার করণেই আজ ব্যাংকের ভল্টে রক্ষিত খাটি সোনা সময়ের ব্যবধানে মিশ্র ধাতুতে পরিবর্তিত হয়ে গেছে। এ অবস্থায় একটি দেশ চলতে পারে না। তিনি বলেন, আমরা আশা করি ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের গণ দাবী মেনে নিতে সরকার বাধ্য হবে। এবং সে রকম একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনে ২০ দলীয় জোট ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে। সে লক্ষ্যে ময়দানে খেলাফত মজলিসের আন্দোলন ও নির্বাচনের প্রস্তুতি অব্যাহত রাখতে হবে। উল্লেখ্য
আজ শুক্রবার সকাল ৯টায় শাহজাহানপুরস্থ মাহবুব আলী ইনস্টিটিউটে মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমীর- মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমান, মাওলানা আবদুল বাসিত আজাদ, যুগ্মমহাসচিব- মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, শেখ গোলাম আসগর, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক- ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, প্রশিক্ষন সম্পাদক অধ্যাপক মহাম্মদ আবদুল হালিম, এডভোকেট মোঃ মিজানুর রহমান, ডা: আবদুল্লাহ খান, আবদুস সামাদ সরকার, মাওলানা নোমান মাযহারী, অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, মাওলানা নূরুজ্জামান খান, কে এম নজরুল হক, মাওলানা নূরুল আলম আল-মামুন, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, মাওলানা শামসুজ্জামান চৌধুরী, এবিএম সিরাজুল মামুন, ডা: শরীফ মোহাম্মদ মোসাদ্দেক, মাস্টার আবদুল মজিদ, মাওলানা আইউব আলী, হাফেজ মাওলানা জিন্নত আলী, অধ্যাপক মাওলানা এস এম খুরশীদ আলম, অধ্যাপক আবুস সবুর, মাহবুব মোর্শেদ, মাওলানা আজিজুল হক প্রমুখ।
অধিবেশনে সারাদেশের বিভিন্ন জেলা ও মহানগরী শাখার ডেলিগেটবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অধিবেশনে সংগঠনের নিয়মিত কার্যক্রমের সাথে সাথে আগামী ১-১৫ সেপ্টেম্বর সারা দেশে একযোগে পক্ষকালব্যাপী গণসংযোগ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
অধিবেশনে একটি শোক প্রস্তাব ও চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে জাতীয় নির্বাচন প্রসঙ্গ, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকদের উপর জুলূম-নির্যাতন প্রসঙ্গ, মাদকদ্রব্যের ছয়লাব ও মাদক নির্মূলের নামে বিচারবহি:র্ভূত হত্যাকান্ড প্রসঙ্গ, আর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অস্থিরতা প্রসঙ্গ, দেশে দেশে মুসলিম নির্যাতন প্রসঙ্গে ৬টি প্রস্তাব গ্রহীত হয়।

মন্তব্য