Gmail! | Yahoo! | Facbook

বড়লেখা ডিগ্রি কলেজ সরকারি করণের দাবিতে মানববন্ধন

FacebookTwitterGoogle+Share

borlekaজাকারিয়া এহসান, মৌলভীবাজার, ১৮ জুলাই ২০১৬: মৌলভীবাজারের বড়লেখার প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠ ঐতিহ্যবাহী বড়লেখা ডিগ্রি কলেজটি সরকারি করার দাবিতে সর্বস্তরের শিক্ষার্থী, শিক্ষক-কর্মচারীসহ বিভিন্ন পেশাজীবির মানুষের পক্ষ থেকে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সোমবার (১৮ জুলাই) দুপুর ১২টায় বড়লেখা-চান্দগ্রাম ও বড়লেখা-শাহবাজপুর প্রধান সড়কের উভয়পাশে সর্ববৃহৎ এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘বড়লেখা ডিগ্রি কলেজ সরকারিকরণ চাই’ এবং অন্যান্য দাবিসম্বলিত একাধিক প্লেকার্ড প্রদর্শন করে।

কলেজের অধ্যক্ষ অরুণ কুমার চক্রবর্ত্তীর সভাপতিত্বে ও প্রভাষক নিয়াজ উদ্দীনের উপস্থাপনায় মানববন্ধন সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ দাস, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল আহাদ, পৌর কাউন্সিলর কাউন্সিলর তাজ উদ্দিন, শিক্ষক-কর্মচারী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক যায়েদ আহমদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানিমুল ইসলাম তানিম, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরানুল ইসলাম। মানববন্ধনে সর্বস্তরের ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক, কর্মচারী, বিভিন্ন পেশাজীবির ব্যক্তিবর্গ, উপজেলা ছাত্রলীগ, উপজেলা ছাত্রদলসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ১৯৮৬ সালে বড়লেখা ডিগ্রি কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১৩ সালের ০৯ নভেম্বর কলেজ মাঠে বিশাল জনসভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বত:স্ফূর্ত প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন যে, ‘ইনশাআল্লাহ আগামীতে যদি সরকারে আসতে পারি, তাহলে আপনাদের এই এলাকার বড়লেখা ডিগ্রি কলেজ আমরা সরকারিকরণ করে দেবো। কিন্তু এ ঘোষণার পর সম্প্রতি উপজেলাভিত্তিক একটি কলেজ সরকারিকরণের লক্ষ্যে সারা দেশের ১৯৯টি কলেজের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। এই তালিকায় লক্ষ জনতার সমাবেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুতি এবং হুইপ শাহাব উদ্দিন এমপি’র ডিও লেটারে উল্লিখিত কলেজের পরিবর্তে রহস্যজনকভাবে বিএনপি দলীয় সাবেক প্রতিমন্ত্রী এবাদুর রহমান চৌধুরীর প্রতিষ্ঠিত ‘নারী শিক্ষা একাডেমী ডিগ্রি কলেজটি অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। কিন্তু একটি কুচক্রীমহলের কারণে প্রাচীনতম এ বিদ্যাপীঠটি সরকারিকরণের ক্ষেত্রে সকল ধরণের যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও সরকারিকরণ না হওয়ায় বড়লেখার আপামর জনসাধারণ হতাশ হয়েছেন। মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দেয়া হয়।

মন্তব্য