Gmail! | Yahoo! | Facbook

ছাত্র- জনতার অধিকার আদায়ে আদর্শিক আন্দোলনকে শানিত করতে হবেঃ ছাত্র মজলিস সভাপতি

FacebookTwitterGoogle+Share

ICM-Barishal

বরিশাল টাউন হলে ইসলামী ছাত্র মজলিসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন

বরিশাল, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ঃ বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি সোহাইল আহমদ বলেছেন, ছাত্র- জনতার অধিকার আদায়ে আমাদের আদর্শিক আন্দোলন শানিত করতে হবে। বর্তমান সামাজিক অবক্ষয়, দুর্নীতি, অপসাংস্কৃতিক আগ্রাসন থেকে মুক্তি পেতে ইসলামের সুমহান আদর্শের আলোকে জীবন গঠনে প্রত্যয়ী হতে হবে। ইসলামী ছাত্র মজলিসের ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বরিশাল মহানগরী ও জেলা শাখা আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

গতকাল ১১ ফেব্রুয়ারী বিকাল ৩ টায় বরিশাল অশ্বিনী কুমার টাউন হলে মহানগর সভাপতি এস এম জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে ও জেলা সভাপতি নূরুল আমীন আজাদীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন ছাত্র মজলিসের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় অফিস ও প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ আবদুল জলিল, ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এইচ এম খালেদ আহমদ, খেলাফত মজলিস বরিশাল মহানগরীর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক এ কে এম শাহজাহান, খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও বরিশাল পশ্চিম জেলা সভাপতি মাস্টার আবদুল মজিদ, বরিশাল মহানগরী সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মুয়াজ্জেম হোসাইন, অধ্যাপক এটিএম মুজাহিদুল ইসলাম, মাওলানা জিয়াঊল ইসলাম, মুহাম্মদ মুহিব্বুল্লাহ প্রমুখ।

town hallবিশেষ অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক আবদুল জলিল বলেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে মুসলমানদের বিরুদ্ধে এক গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। ফিলিস্তিন সিরিয়া ইরাকসহ মধ্যপ্রাচ্যের সংঘাতের কারণে মুসলমানরা জীবন দিচ্ছে। উদ্বাস্তু সিরীয় নারীপুরুষ শিশুরা সাগরে ডুবে মারা যাচ্ছে। এটা হচ্ছে মুসলমানদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও আগ্রাসনের ফল।

তিনি বলেন এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের বাংলাদেশের অবস্থাও আজ সঙ্কটাপন্ন। দেশে রাজনৈতিক স্থবিরতা বিরাজ ক্রছে। দেশে সত্য কথা বলার সুযোগ নেই। সাদাকে সাদা, কালোকে কালো বলা যায় না। দেশে আজ ২ কোটি ২৮ লক্ষ যুবক বেকার। বিদেশি বিনিয়োগ নেই। বহু কলকারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। দেশে ৭০ লক্ষ লোক মাদকাসক্ত। শুধু ঢাকা শহরে ১ লাখ নারী মাদকাক্ত রয়েছে। এ অবস্থায় পুলিশ অফিরের কন্যা ঐশীর মত হাজারো ঐশীর সৃষ্টি হচ্ছে। তাই আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নিয়ে ভাবতে হবে। তাদের বাঁচাতে হলে নৈতিক ও ইসলামী শিক্ষায় গুরুত্ব দিতে হবে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের শিক্ষায় ও সিলেবেসে যেটুকু ইসলামী শিক্ষা ছিল তাও উঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় বিকল্প খুঁজে বের করতে হবে। একটি বিকল্প শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ইসলামী ছাত্র মজলিসকে  আরো সমৃদ্ধ ও মজবুত করতে হবে।

আলোচনা সভা শেষে দুয়া-মুনাজাত পরিচালনা করেন বরিশাল বাঘিয়া আল আমিন কামিল মাদ্রাসার অধ্যাক্ষ আলহাজ্ব মাওলানা আব্দুর রব।

সালাতুল মাগরিবের বিরতির পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টা থেকে রাত ৮ পর্যন্ত মনোজ্ঞ সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন দাবানল শিল্পীগোষ্ঠী ও সিলেটের আলোড়ন শিল্পীগোষ্ঠীর শিল্পীবৃন্দ।

মন্তব্য