Gmail! | Yahoo! | Facbook

পাকুন্দিয়ায় চাল কুমড়া চাষে ঘুরেছে কৃষকের ভাগ্যের চাকা

FacebookTwitterGoogle+Share

Kishoregonj Pic. 03.04.15এমদাদুল্লাহ্, কিশোরগঞ্জ, ৩ এপ্রিল : চাল কুমড়া চাষে ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়েছেন কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার কৃষকেরা। প্রতিবছরই এখানে বাণিজ্যিকভাবে কুমড়ার চাষ বেড়েই চলছে।
উপজেলার বিভিন্ন এলাকার কুমড়া চাষিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আগে চাল কুমড়া ঘরের চালে এবং পুকুরের আশ পাশে চাষ হতো। আর এখন জমিতে মাচা করে চাল কুমড়ার চাষ করে লাভবান হচ্ছেন তারা।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন সবজির পাশাপাশি এ উপজেলায় চাল কুমড়া চাষ দিন দিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে কৃষকেরা বেশ লাভবান হচ্ছেন। কৃষি বিভাগের সূত্র মতে এবার এ উপজেলায় ২০ হেক্টর জমিতে চাল কুমড়ার চাষ হয়েছে।
উপজেলার চরপলাশ গ্রামের মৃত আ. সাহিদের ছেলে বর্গাচাষী সোহেল মিয়া জানান, বিগত কয়েক বছর ধরে চাল কুমড়া চাষ করছি। প্রতিবছরের ন্যায় এই বার এক বিঘা জমিতে চাল কুমড়ার চাষ করেছি। কুমড়া চাষে খরচ হয়েছে প্রায় ২৩ হাজার টাকা। দেড় লাখ টাকার মতো বিক্রয় হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
একই এলাকার বর্গাচাষী আবুল কালাম জানান, কুমড়া চাষের প্রধান শত্রু মাছি পোকা। আবাদকৃত কুমড়ার ফুলে ও ফলে এই পোকা বসলে কুমড়া লাল হয়ে নষ্ট হয়ে যায়। ফলে কুমড়া ঝড়ে পড়ে। এই পোকার আক্রমণ থেকে বাঁচার জন্য তিনি সেক্স ফেরোমন পদ্ধতি ব্যবহার করে পোকা নিধন করেন।
এ ব্যাপারে স্থানীয় উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. আবদুর রশিদ এবং বেসরকারি ভাবে অরণ্য ক্রপ কেয়ার লিমিটেডের কিশোরগঞ্জের মার্কেটিং অফিসার মো. খালেকুজ্জামান রবিন বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করেন বলেও তিনি জানান।
আবুল কালাম আরও জানান, এবার দুই বিঘা জমিতে তিনি চাল কুমড়ার চাষ করেছেন। বিগত বছরের তুলনায় এবার ফলনও ভালো। প্রতি সপ্তাহেই চাল কুমড়া বিক্রি করা হচ্ছে। পাইকার এসে ক্ষেত থেকেই চাল কুমড়া ক্রয় করে নিয়ে যাচ্ছেন। ঢাকার কাওরান বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় যাচ্ছে এসব কুমড়া। প্রতি সপ্তাহে একশ থেকে দেড়শ চাল কুমড়া পাইকারী দরে এক হাজার পাঁচশত থেকে দুই হাজার টাকায় বিক্রয় করা হচ্ছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মুহাম্মদ লিয়াকত হোসেন খান বলেন, আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এ বছর চাল কুমড়ার বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা নিরলসভাবে কৃষকদের পাশে থেকে চাষাবাদে বিভিন্ন পরামর্শ ও সহযোগিতা করছেন।

মন্তব্য