Gmail! | Yahoo! | Facbook

বিলুপ্তির আশংকায় ২১২৮৬ প্রজাতির প্রাণী!

FacebookTwitterGoogle+Share

extinctঢাকাঃ পৃথিবীর প্রাণীজগতের অনেক প্রজাতি যে আজ বিলুপ্তির পথে রয়েছে, সে কথাটা আমরা কমবেশি সবাই শুনেছি। কিন্তু বিলুপ্তির হুমকিতে থাকা এই প্রাণীদের সংখ্যা কত হতে পারে?

প্রকৃতি সংরক্ষণের আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন (আইইউসএন) সম্প্রতি তাদের এক রিপোর্টে এই তথ্য প্রকাশ করেছে যে, বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ২১ হাজার ২৮৬ প্রজাতির প্রাণী পৃথিবী থেকে চিরবিলুপ্তির পথে আছে। আর বিলুপ্তির পথে থাকা এই প্রাণীদের ‘লাল তালিকা’তে নতুন করে সংযুক্ত হয়েছে ওকাপি বা ফরেস্ট জিরাপ এবং আফ্রিকা অঞ্চলের বিরল পাখি হোয়াইট-উইংড ফ্লাফটেইল। প্রতিবেদনে গত কয়েক দশকে ওকাপির জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে মারাত্মক হ্রাসের কথা বলা হয়েছে। ওকাপিকে কঙ্গোর জাতীয় প্রতীক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। কঙ্গোর ব্যাংক নোটগুলোয়ও এর ছবি রয়েছে। জিরাফের এই খুব কাছের আত্মীয় ওকাপি ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোর রেইনফরেস্টগুলোয় দেখতে পাওয়া যায়। নিজের বাসস্থানের সংকট, শিকারীদের দৌরাত্ম, রেইন ফরেস্ট অঞ্চলে কঙ্গোর বিদ্রোহীদের উপস্থিতি ইত্যাদি কারণে এদের সংখ্যা এমন এমন এক কোণায় এসে ঠেকেছে যে, আর একটা ধাপ পেরোলেই পৃথিবী থেকে চিরতরে লোপ পাবে তাদের উপস্থিতির চিহ্ন।

আইইউসএন-এর এই প্রতিবেদনে অস্তিত্বের সংকটে থাকা ২০০ প্রজাতির পাখির নাম রয়েছে। এ তালিকার নতুন সদস্য ইথোপিয়া, জিম্বাবুয়ে ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিরলদর্শন পাখি হোয়াইট-উইংড ফ্লাফটেইল জলাধারের অভাব, জলাধারকে কৃশিক্ষেত্রে রূপান্তরের প্রবণতা বেড়ে যাওয়া ইত্যাদি কারণে হুমকির মুখে পড়েছে।

তবে কিছু সুখবরও শোনা গেছে এই প্রতিবেদনে। অস্তিত্বের হুমকিতে থাকা লেদারব্যাক টার্টল বা নরমখোলস কাছিমের সংখ্যা আগের চেয়ে বাড়ছে। বিরল এই কাছিমটি আকারে কাছিমের সকল উপ প্রজাতির মধ্যে বড়। সংখ্যা কিছুটা বাড়লেও এখনও হুমকি কাটিয়ে উঠতে পারেনি প্রজাতিটি। পাখিদের মধ্যে সবচেয়ে বিপজ্জনক অবস্থায় থাকা দুই প্রজাতির অ্যালবাট্রসও বিপদ কিছুটা কাটিয়ে উঠেছে। সংখ্যা বেড়েছে আইল্যান্ড ফক্স নামের এক বিপদ তালিকায় থাকা শেয়ালেরও।

তথ্যসূত্র: ডেইলি মেইল, দি টেক জার্নাল

দি ঢাকা টাইমস

মন্তব্য

One comment

  1. I’m amazed, I have to admit. Seldom do I come across a blog that’s equally educative and amusing, and without a doubt, you’ve hit the nail on the head. The problem is something not enough men and women are speaking intelligently about. Now i’m very happy that I stumbled across this in my search for something relating to this.

মন্তব্য করুন

আপনার ই মেইল প্রকাশ করা হবেনা. Required fields are marked *

*

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>