Gmail! | Yahoo! | Facbook

মসজিদ- গীর্জায় হামলাকারীরা ইসলাম ও মানবতার দুশমনঃ খেলাফত মজলিসের সম্মেলনে মাওলানা ইসহাক

FacebookTwitterGoogle+Share

খেলাফত মজলিসের সদস্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত
মসজিদ- গীর্জায় সন্ত্রাসী হামলাকারীরা ইসলাম ও মানবতার দুশমন: মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক
kmkmঢাকা, ২৬ এপ্রিল ২০১৯: খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, মসজিদ, গীর্জাসহ ধর্মীয় উপাসনালয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে সাধারণ মানুষকে হত্যাকারীরা ইসলাম ও মানবতার দুশমন। পৃথিবীর যে দেশেই এ ধরণের সন্ত্রাসী হামলা হোক না কেন এবং যারাই এ হামলা করুক না কেন আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আজকে ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্র চলছে। নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলার পর শ্রীীলংকায় গীর্জা- হোটেলে সন্ত্রাসী হামলা ইসলাম ও মুসলমানের বিরুদ্ধে ভয়াবহ ষড়যন্ত্রের অংশ।

তিনি বলেন, দেশের মানুষের জান, মাল, ইজ্জতের ন্যূনতম নিরাপত্তা নেই। অপহরণ, খুন, হত্যা, ধর্ষণ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। পত্রিকার পাতা খুললে দেখা যায় দেশে খুন, ধর্ষণ, নারী শিশু নির্যাতনের সয়লাব চলছে । ঘুষ, দুর্নীতি আর অনিয়মের করালগ্রাসে দেশবাসী আজ সর্বশান্ত। দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতিতে জনগণের নাভিঃম্বাস উঠেছে। ক্ষমতাসীনদের একদলীয় ফ্যাসিবাদী আচরণে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে চলছে চরম সংকট । বিরোধী রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা, গ্রেফতার জেল-জুলুমের মাত্রা সহ্যসীমা অতিক্রম করে ফেলেছে।

km-audiতিনি বলেন, বিগত ৩০ ডিসেম্বরের প্রহসন ও ভোট ডাকাতির নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের নির্বাচন ব্যবস্থার প্রতি জনগণ সম্পূর্ণরূপে আস্থাহীন হয়ে পড়েছে। উপজেলা নির্বাচনে খিচুরী খাইয়েও ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে নেয়া যায়নি। দেশবাসী মনেকরে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধিনে কোন সুষ্ঠু ও গ্রহনযোগ্য নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই রাজনৈতিক অধিকার ফিরে পেতে, জনগণের জান, মাল, ইজ্জতের নিরাপত্তার জন্যে, অর্থনৈতিক শৃঙ্খলা ও অগ্রগতির জন্যে দেশে একটি বৈপ্লবিক পরিবর্তন প্রয়োজন। সে লক্ষ্যে দেশবাসী ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।
খেলাফত মজলিসের সদস্য সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আজ ২৬ এপ্রিল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর শাহজাহানপুরস্থ মাহবুব আলী ইনস্টিটিউটে আমীরে মজলিস মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, অধ্যাপক আবদুল্লাহ ফরিদ, যুগ্মমহাসচিব- মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, শেখ গোলাম আসগর, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক- ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, মাওলানা এ কে এম আইউব আলী, কে এম নজরুল হক, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শফিউল অলম, মাওলানা তোফাজ্জ¦ল হোসাইন মিয়াজী, প্রশিক্ষণ সম্পাদক অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল হালিম, বায়তুলমাল ও আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট মিজানুর রহমান, দফতর ও প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, প্রকাশনা সম্পাদক অধ্যাপক কে এম আলম, সমাজকল্যান সম্পাদক আলহাজ্ব আবু সালেহীন, দাওয়াহ বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা নুরুজ্জামান খান , শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা শামসুজ্জামান চেীধুরী, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: শরীফ মোহাম্মদ মোসাদ্দেক, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাষ্টার সাইফ উদ্দিন, ডাঃ এ এ তাওসিফ, মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম, আহমদ আসলাম, মাওলানা নুরুল আল মামুন, বুরহান উদ্দিন সিদ্দকিী, অধ্যাপক আবু সালমান, মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুল ইসলাম, এবিএম সিরাজুল মামুন, মাস্টার আবদুল মজিদ, মাওলানা সাঈদ আহমদ, মাওলানা সৈয়দ মুশাহিদ আলী, মাওলানা আইউব আলী, হাফেজ মাওলানা জিন্নত আলী, অধ্যাপক মাওলানা খুরশীদ ্অলম, মাওলানা আজিজুল হক, মাওলানা এসএম সালাহ উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজুর রহমান, প্রভাষক মোঃ আবদুল করিম, অধ্যাপক এ কে এম মাহবুব আলম, মাওলানা সাঈদুর রহমান, মাওলানা ওযায়ের আমীন, হাজী নূর হোসেন, মাওলানা কাজী আসাদ উল্লাহ, মাওলানা আবদুল হাই প্রমুখ ।
বৈঠকে সংগঠনের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদরে বলেন, জনগণ দেশের বর্তমান রাজনীতির প্রতি বীতশ্রদ্ধ হয়ে পড়েছে। জনগণ চায় এমন রাজনীতি যা তাদের দৈনন্দিন সমস্যা Ñ ভাতকাপড়ের সমস্যা, দ্রব্যমূল্য, রুজিরোজগারের সমস্যা, বেকার সমস্যার সমাধান করবে। জনগণের সার্বিক নিরাপত্তা ও শান্তি নিশ্চিত করব। রাষ্ট্রীয় সেবা পাওয়ার জন্য জনগণ ঘুষের অভিশাপ ও হয়রানী থেকে বাঁচতে চায়। জনগণ একদলীয় স্বৈরাচারী শাসন থেকে মুক্তি পেতে চায়। একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন ব্যবস্থা চায়। ধর্ম ও ধর্মীয় মূল্যবোধ বিরোধী রাজনীতির অবসান চায়। জনগণের সে প্রত্যাশা পূরণে সবাইকে ঐক্যব্ধভাবে ময়দানে কাজ করতে হবে।

মন্তব্য