Gmail! | Yahoo! | Facbook

শপথ নিয়ে সংসদ অধিবেশনে সুলতান মনসুর

FacebookTwitterGoogle+Share

sultan monsurঢাকা, ৭ মার্চ ২০১৯ঃ শপথ নেওয়ার ছয় ঘণ্টার মধ্যে দল থেকে বহিষ্কৃত ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য সুলতান মো. মনসুর আহমেদ সংসদ অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হয় জাতীয় সংসদের বৈঠক। তখনই তাকে দেখা যায় অধিবেশন কক্ষে।

এর আগে বেলা ১১টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে শপথ নেন সুলতান মনসুর। তার ছয় ঘণ্টা না যেতেই গণফোরাম থেকে বহিষ্কৃত হন তিনি।

মনসুর জানান, আমি ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধি হিসেবে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতার নলেজেই আমি এটা করেছি। দল হিসেবে তারা সিদ্ধান্ত নিতেই পারেন।

সুলতান মনসুর ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নির্বাচিত হন। নির্বাচনের পর থেকেই শপথ নেওয়ার পক্ষে ছিলেন তিনি।

ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মনসুর এক সময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। জরুরি অবস্থার সময় আওয়ামী লীগ থেকে বেরিয়ে তিনি কামাল হোসেনের গণফোরামে আসেন।

গণফোরাম ও ঐক্যফ্রন্ট থেকে বহিষ্কার সুলতান মনসুর

গণবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ এনে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদকে গণফোরাম থেকে বাহিষ্কার করা হয়েছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে তিনি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় রাজধানীর আরামবাগে গণফোরাম কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফা মোহসীন মন্টুকে বহিস্কারের খবর নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার গণমাধ্যমের সাথে কথা বলার সময় সুলতান মোহাম্মদ মনসুর বলেছিলেন তিনি গণফোরাম নয়, জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার সদস্য। মনসুরের এই দাবিকে বৃহস্পতিবার মিথ্যা উল্লেখ করে মন্টু বলেছেন, ২০১৮ সালের ১০ নভেম্বর গণফোরামের সদস্যপদ পেয়েছিলেন মনসুর। সদস্যপদের একটি অনুলিপি গণমাধ্যমের কাছে সর্বরাহ করা হয়েছে। ওই অনুলিপিতে দেখা যায়, গত ১০-১১-২০১৮ তারিখে তাকে গণফোরামের সদস্য করা হয়েছে।

মন্টু বলেন, গণফোরাম এবং জাতীয ঐক্যফ্রন্ট মনে করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও ভোটের অধিকার আদায়ের সংগ্রামকে পদদলীত করে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়ে মনসুর নৈতিকতা বিরোধী ও জনবিরোধী এবং সংসদের রীতি বিরোধী কাজ করেছে। তাই তার বিরুদ্ধে দলের নীতি, আদর্শ ও গণবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে গণফোরামের প্রাথমিক সদস্যপদ বাতিল করা হয়েছে; এবং গণফোরাম থেকে বহিস্কার করা হয়েছে; একই সাথে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টেয়ারিং কমিটির সদস্য পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রওশন ইয়াজ দানী, মোস্তাক আহম্মদ, রফিকুল ইসলাম পথিক, ফরিদা ইয়াসমিন উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য